জ্বালানীর খোঁজে আগ্নেয়গিরির পেটে আইসল্যান্ড!

বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য পরিবেশবান্ধব জ্বালানীর উৎস খুঁজতে এবার এক আগ্নেয়গিরি’র ৪.৭ কিলোমিটার ভেতরে প্রবেশ করলো আইসল্যান্ডের জ্বালানী অধিদপ্তর। নর্ডিক মিথের দেবতা ‘থর’ এর নামে নামকরণকৃত এই প্রকল্পই প্রমাণ করে জ্বালানীর পরিচ্ছন্ন উৎস খোঁজার ব্যাপারটা কতটা গুরুত্বের সাথে নিয়েছে আইসল্যান্ড। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সফল হলে এই প্রকল্প থেকে দেশটির সাধারণ যেকোন গ্যাস বা তেলচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্রের চাইতে ১০ গুণ বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদিত হবে।

আইসল্যান্ড

গতবছরের আগস্টে শুরু হওয়া এই খনন প্রকল্পের কাজ এ বছরের জানুয়ারিতে সমাপ্ত হয়েছে। প্রকৌশলীরা আগ্নেয়গিরির প্রায় ৩ মাইল (৪৬৫৯ কিলোমিটার) গভীর পর্যন্ত খুঁড়ে তার কেন্দ্রে পৌঁছেছেন। এখানে তাপমাত্রা ৪২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস (৮০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট), যা থেকে উৎসারিত গরম বাষ্প অনায়াসেই টার্বাইন ঘুরিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করার ক্ষমতা রাখে।

জ্বালানীর খোঁজে আইসল্যান্ডের আগ্নেয়গিরির দ্বারস্থ হবার নজির এই প্রথম নয়। সত্তুরের দশকে তীব্র তেলের সংকট দেখা দেয়ায় একবার বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে আগ্নেয়গিরির সাহায্য নিয়েছিলো উত্তর-পশ্চিম ইউরোপের খনিজসম্পদে সমৃদ্ধ ছোট এই দেশটি। তবে এই প্রকল্পের ফলে এ পর্যন্ত তাদের যেকোন বিদ্যুৎ প্রকল্পের চাইতে দশগুণ বেশি বিদ্যুৎ পরিবেশবান্ধব উপায়ে উৎপাদিত হবে, এমন আশার বাণীই শোনাচ্ছেন প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্টরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*