স্পেন-পর্তুগালে ভয়াবহ দাবানল, নিহত ২৭

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়া ছবি-ভিডিওগুলো দেখলে যেন মনে হবে এ কোনো হলিউড সিনেমার দৃশ্য। ধোঁয়া-আগুন গ্রাস করে নিচ্ছে পুরো শহরকে! ভয়াবহ দাবানলের এমন দৃশ্যগুলো দেখা গেছে স্পেনের উত্তরাঞ্চল ও পর্তুগালে। ঝড়ো হাওয়ায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়া এই দাবানলে এরই মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ২৭ জন। অনেক গ্রাম-শহর থেকে পালিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিতে হয়েছে আক্রান্ত মানুষদের।

পর্তুগালের কোনো কোনো কর্মকর্তা বলছেন, এই আগুনটা মানুষই শুরু করেছে ইচ্ছাকৃতভাবে। কিন্তু ঝড়ো হাওয়ার কারণে সেটা দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। আর শেষপর্যন্ত যে এটা এত ভয়াবহ আকার ধারণ করবে, তা হয়তো কেউ কল্পনাও করেননি। আটলান্টিক মহাসাগরে সৃষ্ট হওয়া ঘূর্ণিঝড় ওফেলিয়া জোর হাওয়া দিয়েছে এই প্রাণঘাতী দাবানলে। স্পেনের উত্তরপশ্চিম অঞ্চলের গালিসিয়া অঞ্চলের দাবানল এখনও আছে নিয়ন্ত্রণের বাইরে।

গত জুনে পর্তুগালের আরেকটি ভয়াবহ দাবানলে প্রান হারিয়েছিলেন ৬৪ জন মানুষ। সাম্প্রতিক এই দাবানলেও নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন পর্তুগাল ও স্পেনের কর্মকর্তারা।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানা গেছে, স্পেনে এখন পর্যন্ত তিনজনের লাশ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে দুজন নারী। গালিসিয়ার একটি রাস্তায় গাড়ির ভেতরে তাঁদের মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। ৭০ বছর বয়সী আরেক বৃদ্ধ প্রাণ হারিয়েছেন তাঁর খামারের পশু রক্ষা করতে গিয়ে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শুধু স্পেনের গালিসিয়াতে ১০০টির বেশি জায়গায় জ্বলছে আগুন। এর মধ্যে ৬৭টি জায়গায় আগুন আছে নিয়ন্ত্রণের বাইরে। ১৬টি এলাকা থেকে সবাইকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিরাপদ স্থানে। পর্তুগালে দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে একযোগে কাজ করছেন ছয় হাজারেরও বেশি দমকলকর্মী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*