শেষ কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রটিও বন্ধ হলো বেইজিংয়ে

বেইজিংয়ের সর্বশেষ বড় কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রটি সম্প্রতি কাজ বন্ধ করে দিয়েছে, পরিবর্তে এখন প্রাকৃতিক গ্যাস থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ ব্যবহার করছে চীনের রাজধানী এই মহানগরীটি। গত সপ্তাহে শহরটি কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে যাওয়ার পর সরকার থেকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৃহত্তর এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি বন্ধ করার মাধ্যমে চীনের “আকাশ পুনরায় নীল” করার প্রতিশ্রুতি রক্ষায় একধাপ এগিয়ে গেলো তারা। রাষ্ট্রীয় এক ভাষণে এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রিমিয়ার লি কেকিয়াং।

দেশটির সংবাদমাধ্যম জিনহুয়া বলছে, বেইজিং চীনের প্রথম শহর যার প্রতিটি বিদ্যুকেন্দ্র প্রাকৃতিক গ্যাসে চলে। ২০১৩ তে গৃহিত পাঁচবছর মেয়াদি বায়ু প্রক্ষালণ  প্রকল্পের সুফল এটা। সম্প্রতি বন্ধ হওয়া হ্যাংনেং বিদ্যুৎকেন্দ্রটি ২০১৩ থেকে ২০১৭ এর মধ্যে কয়লা থেকে প্রাকৃতিক গ্যাসে সরে আসা চতুর্থ বিদ্যুৎকেন্দ্র, যার ফলে বছরে কমছে ১০ মিলিয়ন টন কয়লা উৎসারণ। রোববারে বায়ুদূষণের ফলে সারাশহরে ব্লু এ্যালার্ট জারি হবার আগের রাতে এই বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ হবার ঘোষণা দেয় জিনহুয়া। বেশ কিছুদিন ধরে বেইজিংয়ের বাতাস ভারি হয়ে আছে ঘন ধোঁয়ায় যা পুরো সপ্তাহজুড়ে থাকবে।

গত বুধবারে চীনের বাৎসরিক জাতীয় সংসদ অধিবেশনের পর থেকে সেখানকার বাতাসে ক্ষতিকারক কণা পিএম২ এর পরিমাণ ২০০-৩০০ মাইক্রোগ্রাম প্রতি ঘনমিটারে আটকে আছে, যা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ঘোষিত দিনে ২৫ মাইক্রোগ্রাম/ঘনমিটারের চাইতে অনেক অনেক বেশি। কেবল কোনো বিশেষ আয়োজন উপলক্ষ্যে সরকারী আদেশে কারখানাগুলো এবং রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ থাকলেই দূষণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে থাকে। যেমনটা ছিল ২০০৮ এর বেইজিং অলিম্পিক্সের সময়।

২০১৪ তে বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত এশিয়া-প্যাসিফিক অর্থনীতি সম্মেলনের সময় দূষণের পরিমাণ রেকর্ড হারে কমে গড় পিএম২.৫ এর মাত্রা ৫০-৮০ মাইক্রোগ্রাম/ঘনমিটারে সীমাবদ্ধ ছিল, অথচ তার ঠিক একদিন আগেই তা ২০০ ছুঁয়েছিল। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রিমিয়ার লি তার পূর্বের কয়লার ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ এবং যানবাহনের দূষণ কমানোর প্রতিশ্রুতির পুনরাবৃত্তি করেন। তিনি বলেন,  “আমরা প্রকৃতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না, কিন্তু আমরা নিজেদের আচরণ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে পরিবর্তনশীল জলবায়ুর সাথে খাপ খাওয়াতে পারি। নীল আকাশ আর কোন স্বপ্ন থাকবে না, বাস্তবে রূপ নেবে। “

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*